দুই বোনকে এসিড নিক্ষেপ : খালাতো ভাই-বোনের যাবজ্জীবন

১৯৬

চট্টগ্রাম নগরের জয়নগরে ঘুমন্ত দুই বোনকে এসিড নিক্ষেপের দায়ে আপন দুই খালাতো ভাই-বোনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১ জুন) চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ ৫ম আদালতের বিচারক নারগিস আক্তার এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, শারমীন ফারজানা লতিফ সাকি (৩৩) ও তার ছোট ভাই মুহাম্মদ ইফতেখার লতিফ সাদি (৩০)। তারা আপন ভাই বোন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত কৌঁসলী অ্যাডভোকেট তসলিম উদ্দিন জানান, আপন দুই বোনকে এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় আপন দুই ভাই-বোনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। ২২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দিয়েছেন।

তিনি বলেন, একই রায়ে আদালত শারমিন ফারজানা সাকিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও ইফতেখার লতিফ সাদিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। অনাদায়ে ১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১০ সালের ২ অক্টোবর নগরীর চকবাজার থানার জয়নগর এলাকার ঘুমন্ত দুই বোনকে এসিড নিক্ষেপ করেছিল তাদের খালাতো বোন শারমিন ফারজানা। খালাতো বোনের সৌন্দর্য, নিজের আগে বিয়ে ঠিক হওয়ায় ঈর্ষান্বিত হয়ে ঘুমন্ত দুই বোন মুনতাহা কারিনা ও সালসাবিল তাসনিমকে এসিড নিক্ষেপ করে ফারজানা। এ সময় ঘটনা অন্যদিকে প্রবাহিত করতে নিজের মুখেও হালকা এসিড মেরেছিলো শারমিন। ঘটনার দিন দুই বোনের বাবা আনোয়ারুল মোমিন বাদী হয়ে এসিড দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার ২১ দিন পর ২৩ অক্টোবর পুলিশ রহস্য উন্মোচন করে। এরপর শারমিন ফারজানাকে এ মামলার গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর ২০১১ সালের ২৮ এপ্রিল চার্জশিট গ্রহণ করে বিচার শুরু হয়।

ভিকটিম দুই বোনের মা আনার কলি বলেন, আমার মেয়েরা চিকিৎসায় প্রাণ ফিরে পেলেও গত প্রায় একযুগ এক অসহনীয় কষ্ট সহ্য করছি। তারা এখনো পুরোপুরি সুস্থ্য হয়নি। এই রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। আমরা আশা করবো উচ্চ আদালতে আপিল করলেও এই রায় বহাল থাকবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.