গভীর শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

বাংলা ভাষার জন্য প্রাণ উৎসর্গকারী শহীদদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেছে চট্টগ্রামবাসী। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহর থেকেই চট্টগ্রামের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টা ১ মিনিটে মিউনিসিপ্যাল স্কুল ও কলেজ মাঠের অস্থায়ী শহীদ মিনারের সামনে সশস্ত্র অভিবাদন জানায় সিএমপির একটি চৌকস দল।

এরপর প্রথমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী।

পর্যায়ক্রমে বিভাগীয় কমিশনার তোফায়েল ইসলাম, সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়, ডিআইজি নূরে আলম মিনা, জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবুল বাশার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নগর ও জেলা কমান্ড নেতারা ফুলেল শ্রদ্ধা জানান।

সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মিউনিসিপ্যাল স্কুল ও কলেজ মাঠে গিয়ে দেখা যায়, কারো হাতে জাতীয় পতাকা, গায়ে শোকের কালো পোশাক, কেউ আবার ফুল নিয়ে যাচ্ছে শহীদ বেদীতে দেওয়ার জন্য। সারিবদ্ধ হয়ে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে চট্টগ্রামের নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসা সর্বস্তরের মানুষে লাইন আরও দীর্ঘ হয়। ফুল আর ছোট ছোট পতাকা হাতে লাইন বেঁধে অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায় সব বয়সের, সব শ্রেণি পেশার মানুষকে।

বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ তাদের সন্তানদের নিয়ে শহীদ মিনারে আসেন ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে।

বেলা দশটার দিকে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন, সংসদ সদস্য মহিউদ্দিন বাচ্চু, সাবেক সংসদ সদস্য নোমান আল মাহমুদ, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম আলম সুজনসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা শ্রদ্ধা জানায়।

এর আগে চট্টগ্রাম চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটেরা, চট্টগ্রাম জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর ও চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগসহ নানা সংগঠনকে শ্রদ্ধা জানাতে দেখা গেছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.