চসিকের অভিযান: ফের হকারমুক্ত নিউমার্কেট এলাকার সড়ক ও ফুটপাত

নগরের ব্যস্ততম নিউমার্কেট এলাকার সড়ক ও ফুটপাত হকারমুক্ত করতে আবারো উচ্ছেদ অভিযান হয়েছে। বৃহস্পতিবার ফুটপাত উদ্ধার করে পথচারীদের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে এই অভিযান পরিচালনা করেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন।

এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি সিটি করপোরেশনের মাসিক সভায় ব্যাপক অভিযান চালানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার সাতজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে সকাল ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে পুরাতন রেল স্টেশন থেকে শুরু করে নিউ মার্কেট ও জিপিও এলাকার ফুটপাত থেকে হকারদের উচ্ছেদ করা হয়। এ সময় প্রায় ২৫০ পুলিশ, ৩০ জন র্যাব সদস্য, ২০০ শ্রমিক, বিপুল সংখ্যক চসিকের নিরাপত্তাকর্মী, আনসার অংশ নেন। অভিযানে সড়ক ও ফুটপাতে হকারদের বাঁশ, চৌকি, খাট, টেবিল জব্দ করা হয়।

অভিযান সম্পর্কে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, নিউমার্কেট মোড়ের হকার উচ্ছেদ এক শ্রেনীর চাঁদাবাজদের কারণে খুবই কঠিন। এ চাঁদাবাজদের কারণে মানুষ স্বস্তিতে হাটতে পারতনা, সড়কে জ্যাম লেগে থাকত।

“আমি সাহস করে এবং নিজের উপর ঝুঁকি নিয়ে চট্টগ্রামের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছি। উদ্ধার হওয়া জায়গা রক্ষায় কাঁটাতারের বেড়াও দিয়েছি। পাশাপাশি উদ্ধার হওয়া জায়গায় নিয়মিত মনিটরিং চলবে। কোন হুমকি, ধামকি বা প্রলোভনে কাজ হবেনা। যে জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে তাদের স্বার্থে কাজ করে যাব।”

অবৈধভাবে দোকানপাট, অননুমোদিত স্থাপনা গড়ে পথচারীদের চলাচলে বিঘ্ন ও যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। তাই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে জানিয়ে অভিযানে অংশ নেয়াএকজন ম্যাজিস্ট্রেট জানান, জনস্বার্থে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, এর আগে সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের আমলেও একবার অভিযান চালিয়ে নিউমার্কেট এলাকার সড়ক ও ফুটপাত হকারমুক্ত করা হয়েছিল।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.