চট্টগ্রামে হু হু করে বাড়ছে করোনা

একদিনে রেকর্ড আক্রান্ত ৮২১, মৃত্যু ৯

৭২৩

চট্টগ্রামে করোনায় এবার নতুন রেকর্ড করলো আক্রান্তের সংখ্যায়। ২৪ ঘন্টায় (রোববার) সর্বোচ্চ ৮২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সর্বোচ্চ মৃত্যুর গড়ার পর দিন আক্রান্তেও আগের সব হিসাবকে ছাড়িয়ে গেল বন্দরনরগরী। নগরীর বাইরে সীতাকুণ্ড গত কয়েকদিন আক্রান্তে শীর্ষে থাকলে আবারো আশপাশের উপজেলাকে ছাড়িয়ে ৫৭জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয় হাটহাজারীতে।

তবে আগের দিন (রোববার) ১৪ জনের স্থলে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৯ জন। মারা যাওয়াদের মধ্যে দুইজন নগরের আর ছয় জন বিভিন্ন উপজেলার।

সোমবার (১১ জুলাই) রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত করোনা বিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

রিপোর্টে চট্টগ্রামে দ্রুত করোনা বিস্তারের চিত্র উঠে আসে। এদিন সরকারি বেসরকারি ১১ টি ল্যাবে ২ হাজার ১৭৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮২১ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়। যাদের ৫২৭ জন নগরের ও ২৯৪ জন উপজেলার বাসিন্দা। শতকরা হিসাবে এ হার ৩৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৮২১ জনসহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫ হাজার ৮২৯ জন। নতুন ৯ জনসহ মোট মৃতের সংখ্যা ৭৮০ জন।

এই দিন ১১টি ল্যাবে ২ হাজার ১৭৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ২৫১ জনের মধ্যে ৫৭ জন, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৩২৪ জনের মধ্যে ১২৩ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ২২৯ জনের মধ্যে ৬৬, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭০ জনের মধ্যে ১১৫ জন, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাপসপাতালে ২৭ জনের মধ্যে ৪ জন, ৬৬৩ জনের এন্টিজেন টেস্টে ১২৮ জন, ইমপেরিয়াল হাসপাতালে ২১৭ জনের মধ্যে ১০১ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৫৩ জনের মধ্যে ২৩ জন, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৩৭ জনের মধ্যে ২২ জন, মেডিকেল সেন্টারে ২২ জনের মধ্যে ১২ জন এবং ইপিক হেলথ কেয়ার ল্যাবে ১৪১ জনের মধ্যে ৭০ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

এদিন মোট আক্রান্ত ৮২১ জনের মধ্যে উপজেলাগুলোর ২৯৪ জন। এর মধ্যে শীর্ষে আছে করোনার হটস্পট হাটহাজারীর ৫৭ জন। এর পরে আছে মীরসরাই ৩৮জন, রাউজানে ৩৫ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ২৭ জন, বোয়ালখালীতে ২৭ জন, আনোয়ারায় ২৩ জন, পটিয়ায় ১৭ জন, সন্দ্বীপে ১৬ জন, সীতাকুণ্ডে ১৪জন, চন্দনাইশে ১২ জন, বাঁশখালীতে ১১ জন, সাতকানিয়ায় ৮ জন, ফটিকছড়িতে ৬ জন ও লোহাগাড়ায় ৩ জন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.